অষ্টম শ্রেণী

জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষার ফলাফল পুনঃনিরীক্ষণের নিয়মাবলী জেনে নিন

সালের জে.এস.সি ও  জেডিসি পরীক্ষার ফলাফল ২৪ শে ডিসেম্বর প্রকাশিত হয়েছে। এ বছর জে.এস.সি তে পাসের হার ৮৫.৮৩% শতাংশ, জেডিসি-তে ৮৯.০৪ শতাংশ। জেএসসি-জেডিসির গড় পাসের হার ৮৫ .৮৩। জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পেয়েছে ৬৮ হাজার ৯৫ জন পরীক্ষার্থী। অনেক পরীক্ষার্থী তাদের কাঙ্খিত ফলাফল পেয়ে যেমন আনন্দে উল্লাসিত তেমনি কিছু পরীক্ষার্থী তাদের ফলাফল আশানুরুপ না হওয়ায় হতাশায়  ভুগছে। তোমার যদি কোন বিষয়ের ফলাফল নিয়ে সন্দেহ থাকে তবে তুমি ওই বিষয়ের উপর পুনঃনিরীক্ষণ বা বোর্ড চ্যালেঞ্জ করতে পারবে।

খাতা পুনঃনিরীক্ষণ প্রক্রিয়ায় শুধুমাত্র খাতায় নাম্বার গণনার ক্ষেত্রে অথবা কোন উত্তরে নাম্বার প্রদানে ভুল হয়েছে কিনা তা চেক করে দেখা হয়।

২৪ ডিসেম্বর সোমবার থেকে ৩০ ডিসেম্বর রবিবার পর্যন্ত টেলিটক সিমের মাধ্যমে ফলাফল পুননির্রীক্ষণের আবেদন করা যাবে।

ফলাফল পুনঃনিরীক্ষণ কি???

এসএসসি কিংবা এইচএসসি এর মত জেএসসিতেও পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশের পর দিন থেকে বাংলাদেশের সকল মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডগুলো আশানুরুপ না হওয়াতে যে সকল শিক্ষার্থীদের মনে অনিশ্চয়তা থাকে তাদের জন্যে খাতা পুনঃমূল্যায়ন এর সুযোগ দিয়ে থাকে যা “ফলাফল পুনঃমূল্যায়ন”, “পুনঃনিরীক্ষণ”, “খাতা চ্যালেঞ্জ”, “Rescrutiny” ইত্যাদি নামে পরিচিত। অনেকের ধারণা বোর্ড কতৃপক্ষ খাতা পুনঃমূল্যায়ন করে। কিন্তু আসলে এই প্রক্রিয়ায় বোর্ড থেকে যা করা হয় তা হল, নম্বর গণনা কিংবা কোথাও নম্বর প্রদানে ভুল ভ্রান্তি ভ্রান্তি হয়েছে কিনা সেসব বিষয় মিলিয়ে দেখা হয়।

যেভাবে ফলাফল পুনঃনিরীক্ষণ করবেনঃ

ফলাফল পুনঃমূল্যায়ন করতে বোর্ড এ যাওয়ার কোন প্রয়োজন নেই। চাইলে ঘরে বসে মোবাইল থেকেই ফলাফল পুনঃমূল্যায়ন এর জন্যে আবেদন করতে পারবেন। তার জন্যে যা যা লাগবেঃ

  • টেলিটক সংযোগ সহ একটি মোবাইল ফোন। (শুধুমাত্র টেলিটক আপারেটর থেকেই ফলাফল পুনঃমূল্যায়ন সম্ভব কিন্তু যাদের টেলিটক সিম নেই তাদের চিন্তার কিছু নেই, তারাও চাইলে অন্য কারো সিম ব্যবহার করে অথবা ফলাফল পুনঃমূল্যায়ন এর আবেদন করে এ ধরণের কোন দোকান থেকেও আবেদন করতে পারবেন)
  • মোবাইলে পর্যাপ্ত পরিমাণ ব্যালেন্স (প্রতিটি বিষয়ের আবেদনের জন্যে মোবাইল থেকে আবেদন ফি বাবদ ১২৫ টাকা করে কেটে নেওয়া হবে। যে সকল বিষয়ের ২ টি পত্র রয়েছে যেমনঃ বাংলা ও ইংরেজি সে সকল বিষয়ের ক্ষেত্রে একটি বিষয় কোডের বিপরিতে ২ টি পত্রের আবেদন বলে গণ্য হবে তাই এ ক্ষেত্রে খরচ পরবে ২৫০ টাকা)
  • আপনার সাথে যোগাযোগ এর একটি ব্যক্তিগত নম্বর (বাংলাদেশের যে কোন অপারেটর এর নম্বর দিতে পারবেন)

আবেদন করতে এসএমএস করবেন যেভাবেঃ

আবেদন করতে টেলিটক মোবাইলে মেসেজ অপশনে গিয়ে RSC লিখে <space> দিয়ে তোমার বোর্ডের নামের প্রথম তিন অক্ষর <space> রোল নম্বর <space> বিষয় কোড (তুমি যে বিষয়ের খাতা পুনঃনিরীক্ষণ করতে চাও সে বিষয়ের কোড দিতে হবে) তারপর পাঠিয়ে দিতে হবে 16222 নম্বরে।

যেমনঃ RSC DHA 527976 101

ফিরতি এস.এম.এস এ আবেদন ফি বাবদ কত কাটা হবে তা জানিয়ে একটি পিন নাম্বার দেয়া হবে। আবেদন করতে ইচ্ছুক হলে RSC লিখে <space> দিয়ে Yes লিখে স্পেস দিয়ে পিন নাম্বারটি লিখে <space> দিয়ে একটি নিজস্ব মোবাইল লিখে 16222 নম্বের পাঠাতে হবে।

যেমনঃ RSC YES 12345 01718XXXXXX

একই SMS এর মাধ্যমে একাধিক বিষয়ে নিরীক্ষণের আবেদন করতে বিষয় কোড নাম্বার পর্যায়ক্রমে লিখতে হবে কমা দিয়ে।

যেমন: RSC DHA 527976 101,107,109,127

প্রতি পত্রের জন্য আবেদন ফি ১২৫ টাকা করে কাটা হবে। যেসব বিষয়ে দুইটি পত্র রয়েছে সেসব বিষয়ে একটি বিষয় কোডের বিপরীতে দুটি পত্রের জন্য আবেদন হিসেবে গণ্য হবে এবং ফি কাটা হবে ২৫০ টাকা।

আবেদনের সময়সীমাঃ

এই প্রক্রিয়া সাধারণত পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ হওয়ার পরদিন থেকে এক সপ্তাহব্যাপী চলে। ২০১৮ সালের জেএসসি ও জেডিসি এর ফলাফল পুনঃমূল্যায়ন প্রক্রিয়া ২৪-১২২০১৮ তারিখ থেকে ৩০-১২-২০১৮ তারিখ রাত ১১ টা ৫৯ মিনিট পর্যন্ত চলবে।

জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষার ফলাফল পুনঃনিরীক্ষণ এর ফলাফল দেখার নিয়মঃ

জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষার ফলাফল পুনঃনিরীক্ষণ এর ফলাফল সাধারণত পুনঃনিরীক্ষণ এর আবেদন করার সময় আপনার সাথে যোগাযোগের জন্যে যে নম্বর প্রদান করেছিলেন উক্ত নম্বরে (আপনার ফলাফল পরিবর্তন হলে) ফলাফল প্রকাশের ফর স্বয়ংক্রিয়ভাবে পাঠিয়ে দেওয়া হবে। তাছাড়া প্রতিটি শিক্ষা বোর্ডের ওয়েবসাইটে আলাদাভাবে পিডিএফ আকারে শুধুমাত্র যাদের ফলাফল পরিবর্তন হয়েছে তাদের ফলাফল প্রকাশ করা হয়। সকল বোর্ড এর জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষার ফলাফল পুনঃনিরীক্ষণ এর ফলাফল একসাথে পাবেন এই লিঙ্কে